নামজারি আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা কিভাবে দেখবেন

আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা আর জন্ম নিবন্ধন কিংবা ভর্তির আবেদন যাই বলেন। সকল আবেদনের একটি সর্বশেষ অবস্থা রয়েছে। এই সব আবেদনের বর্তমান কিংবা শেষ অবস্থার চেক করার সুবিধা রয়েছে অনেক জায়গায়। আজ আমারা জানবো নামাজারি আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা নিয়ে। কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক। সর্বশেষ অবস্থা জানার আগে প্রথম অবস্থা সম্পর্কে কিছু জানা থাকতে হবে। তাই প্রথম থেকে মনেযোগ দিয়ে পড়ুন।

নামজারি আবেদন কি

আবেদন হলো মূলতো দরখাস্থা বা কোনো কিছু পাওয়ার জন্য কারো কাছে চাওয়া। নামজারি আবেদন হলো নির্দিষ্ট জমি মালিক তার নিজের নামে একিটি খতিয়ান প্রস্তুন এর জন্য প্রস্তাব করা। কেউ কেউ এই খতিয়ানকে খারিজ খতিয়ানের আবেদন বলে। পরিভাষায় বলতে গেলে জমির রেকর্ড নিজের নামে আনতে হলে যে আবেদন করা হয়ে থাকে তাকে নামজারি বলে। আবেদন শেষ হলে আপনি আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা দেখতে পারবেন। সে বিষয়ে একটু পড়েই আসছি।

ই-নামজারি কি

আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা দেখার জন্য ই নামজারি কি প্রশ্ন করলে আপনাকে প্রথমে ‘ই’ এর মানে বুঝতে হবে। কারণ বর্তমান সময়ে অনলাইনের প্রায় সেবায়ই ই বর্ণটি যুক্ত দেখা যায়। ই এর মানে হচ্ছে ইলেক্ট্রনিক আর নামজারি মানে নামিয় কোনো কিছু। তার মানে ই-নামজারি মানে হলো ইলেক্টনিক মাধ্যমে নিজের নামে কোনো কিছু প্রস্তুত করা। ই নামজারি আবেদন অনলাইনে করা হয়ে থাকে যার ফলে আপনি এই আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা অনলাইনে দেখতে পারেন।

আবেদন চেক করতে কি কি লাগবে

সঠিক সব তথ্য দিয়ে আবেদন চেক করতে হবে। মানে আপনি আবেদনে যে সকল তথ্য দিয়ে ছিলেন তার মধ্য থেকে কিছু বিষয় আপনাকে দিতে হবে। নিচে ধারাবাহিক বিস্তারিত বর্ণনা দেওয়া হলে। যদি আপনি নিচের সবগুলো তথ্য সঠিক ভাবে দিতে পারেন তবে আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা বা বর্তমান অবস্থা দেখতে পারবেন।

নামজারি আবেদন করুন।

বিভাগ

আপনার নামজারির সর্বশেষ অবস্থা দেখার জন্য প্রথমেই আপনার বিভাগ সিলেক্ট করতে হবে। মানে আপনি কোন বিভাগ থেকে নামজারির আবেদন করেছেন। সেটা হলে পারে সিলেট থেকে শুরু করে আটটি বিভাগের যে কোনো একটি।

আবেদন আইডি

আবেদন আইডি আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আবেদন দেখতে হলে আপনার নামজারি আবেদন ফরমের একেভারে উপরে দেয়া আবেদন নং লিখা নাম্বারটি প্রদান করতে হবে। এবং সেটা দেখে শুনো সঠিক ভাবে দিতে হবে।

আবেদনের বর্তমান অবস্থা দেখতে ক্লিক করুন

জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর

জাতীয় পরচয় পত্র নম্বর মানে আপনি যে ভোটার আইড কার্ড দিয়ে আবেদন করে ছিলেন সেটির নাম্বার সঠিক ভাবে দিতে হবে। মনে রাখবেন সেটা হতে হবে আবেদনকারীর। মানে যার নামে নামজারির আবেদন করা হয়েছে তার। আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা দেখতে যদি আইডি কার্ড সাথে না থাকে তবে মোবাইল নাম্বার দিয়েও দেখতে পারবেন।

সবকিছু ঠিকঠাক দেয়া হয়েগেলে সব শেষ কাজ হলো যোগ করুন। এখানে আপনাকে একটি যোগ করতে বলা হবে। অবশ্যই আপনার কিবোর্ড তখন ইংলিশ করে নিতে হবে। অন্যথায় হবে না।

এবার আপনি খুজুন লিখাটির উপর ক্লিক করুন। দেখবেন আপনার আবেনদকৃত ব্যক্তির নাম ও ছবি দেখাবে এবার আপনি চাইলে এখান থেকে খসড়া খতিয়ান দেখতে পারবেন । অথবা আপনার আবেদনটি কোন অবস্থায় আছে সেটা দেখতে পারবেন।

আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা দেখতে কত টাকা লাগে

না আবেদন চেক করতে কোন টাকা লাগেনা তবে ই-মিউটেশন বা নামজারি আবেদন করতে প্রথমত ৭০ টাকা লাগে। তার মধ্যে আবেদন ফি ৫০ টাকা এবং নোটিশজারি ফি ২০ টাকা। এই টাকা প্রেমেন্ট করলেই আপনার আবেদনটির কার্যক্রম শুরু হয়ে যাবে।

আবেদনে ১১০০ টাকার কিসের জন্য

আবেদনে ৭০ টাকা পেমেন্ট করার পর যখন আপনার খতিয়ান প্রস্তুত হয়ে যাবে। তখন আপনাকে ডিসিআর ফি হিসেবে আরো ১১০০ টাকা প্রদান করতে হবে। আর এই টাকাটি দেয়া হয়ে গেলা আপনাকে রিসিট বা রসিদ দেয়া হবে। এবং আপনি আপনার খতিয়ান ডাউনলোড করতে পারবেন।

নামজারি আবেদন এর ফি কি ভাবে দেবেন

নামজারি আবেদন ফি বলেন বা ডিসিআর ফি। সবগুলো ফি কিন্তু আপনাকে অনলাইনে প্রদান করতে হবে। নিচে দেয়া বিকাশ, নগদ, রকেট, ই-কেপে বা অন্যান্য যে কোনো অনলাইন ব্যাংকিং এর মাধ্যেমে আপনি এই ফি প্রদান করতে পারবেন।

আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা

আবেদন এর সর্বশেষ অবস্থা কোথায় চেক করবো

নামজারি আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা আপনি আপনার মোবইল কিংবা কম্পিটার থেকে আপনার ঘরে বসেই কতে পারেন। এই জন্য কারো কাছে যে হবে না। আবেদন করার জন্য যে সকল ডকুমেন্ট লাগেবে সবগুলো যদি থাকে তবে ভূমি মন্ত্রণালয় এর সাইট থেকে নাগরিক কর্ণারে ডুকে আবেদন করতে পারেন।

কি কি কাগজ সংযুক্ত করতে হবে

যে সকল কাগজ নামজারি আবেদন করতে লাগবে সেগুলোর কোন একটি কাগজ না থাকলে আপনার নামজারি ১০০% হবে না। যদিও হয় তবে না মন্জুর হওয়ার সম্ভাবনা আছে। কাগজ গুলো হলো। আবেদনকারীর ভোটার আইডি কার্ড এবং ছবি। আবেদন কৃত জমির খতয়িান বা পর্চা। উক্ত জমির মালিকার দলিল।

আরো পড়ুন:- খতিয়ান বা পর্চ কিভাবে ডাউনলোড করবেন

ই-নামজারি আবেদন কি ভাবে করবেন

কিভাবে সংযুক্ত করবো

উপরে উল্লেখিত সকল কাগজ ‍যদি আপনার কাছ থাকে । তবে আপনি এই কাগজ গুলো স্ক্যান করেন। এবার একদম নিছে সংযুক্তিতে স্ক্যানকৃত ফাইল গুলো পিডিএফ কিংবা জেপিজি আকারে আপলোড করে সংযুক্ত করতে পারেন।

আবেদন না মন্জুর হলে কি করবো

আপনার আবেদন যদি না মন্জুর হয় তবে আপনাকে পুনঃরায় আবেদন করতে হবে। তবে যে কারনে না মন্জুর হয়েছে সেটা জানেতে হবে। কারণ কোনো কারণ ছাড়া আপনার আবেদন না মন্জুর হবেনা। তাই যে কারণে না মন্জুর হয়েছে সেটা সমধান করে আবার আবেদন করতে হবে।

না মন্জুর হওয়ার কারণ জানবো কি ভাবে

ই-নামজারির আবেদন না মন্জুর হওয়ার কারণ জানার জন্য আপনি প্রথমেই সেটা স্থানীয় এসিলেন্ড অফিস থেকে জানতে পারবেন। তাছাড়া বর্তমানে কোনো আবেদন প্রথবারেই না মন্জুর করা হয় না। আবেদনকারীকে অবগত করা হয় কোন কাগজ বা ডকুমেন্ট প্রয়োজন যদি সেটা আপনি নিয়ে আসেন তবে না মন্জুর হবে না। তাছাড়া না মন্জুর হওয়ার কারণ আপনি অনলাইনে নিজে দেখতে পারবেন আবেদন যাচাইয়ের মাধ্যমে।

ইতিকথা

পরিশেষে বলতে চাই অনলাইনে যে আবেদন করা হয়। তার বেশির ভাগই অনলাইনে নিষ্পত্তি হয়। সুতরাং আপনি আপনার আবেদনটির সর্বশেষ অবস্থা যে কোন সময় যাচাই করতে পারবেন। তবে সঠিক তথ্য দিতে হবে। এই পোষ্ট যদি আপনার উপকারে আসে তবে অন্যদের জন্য শেয়ার করুন। আরো জানতে আমাদের ফেইজবুকে ফলো করুন।

তাহলে আজকে আমরা জানলাম আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা কিভাবে চেক করতে হয়। আবেদনের অবস্থা চেক করতে কোনা টাকা লাগেনা। নামজারি আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা চেক করতে কি কি লাগবে। যদি ভোটার আইডি কার্ড না থাকে তবে মোবাইল নাম্বার দিয়ে নামজারি আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা চেক করা যায়।

FAQS

  • নামজারি আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা কি ভাবে চেক করবো
  • উত্তর- আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা চেক করা জন্য এখানে ক্লিক করুন
  • আবেদন চেক করতে কি কোন ফি প্রদান করতে হয়
  • উত্তর – না আবেদন চেক করত হলে কোনো টাকা বা ফি প্রদান করতে হয় না।
  • আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা দেখার জন্য কি কি লাগবে
  • উত্তর- নামজারি আবেদন নাম্বার, এন আইডি নাম্বার [যেটা দিয়ে আবেদন করা হয়েছে সেটা ]
  • যদি ভোটার আইডি কার্ড সাথে না থাকে তবে কি চেক করা যাবে
  • উত্তর- হ্যা। ভোটার আইডি কার্ড এর জায়গায় আপনার মোবাইল নাম্বার [ যে নাম্বারে ওটিপি পাটানো হয়েছে ] দিয়ে আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা দেখতে পারবেন।
Scroll to Top